,
শিরোনাম:
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় কোটা আন্দোলনকারীদের সাথে ছাত্রলীগের ধাওয়া পালটা ধাওয়া \ বেশ কয়েকজন আহত, ককটেল বিস্ফোরণ নবীনগরে তিন শতাধিক অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ নান্দনিক আবৃত্তির মধ্য দিয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া মাতিয়ে গেলেন ভারতের আবৃত্তি সংস্থা শ্রুতি সালিশ সভায় চেয়ারম্যানের নির্দেশে নারীকে নির্যাতন বিজয়নগরে বর্তমান ও সাবেক ইউপি সদস্য গ্রেপ্তার ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার ও অবৈধ পাচার বিরোধী আন্তর্জাতিক দিবস পালিত জনপ্রতিনিধিদের ক্ষমতার পরিধির মধ্যে থেকে এলাকার উন্নয়নে কাজ করতে হবে- গণপূর্ত মন্ত্রী বৃক্ষায়নের জায়গা না রেখে নতুন বাড়ি বা ভবন নির্মাণের অনুমতি দেয়া হবে না- গণপূর্ত মন্ত্রী ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মাদক কারবারের বিরোধে নারীকে হত্যা, গ্রেফতার ৩ আখাউড়া থানার হাজত কক্ষের গ্রিল ভেঙে পালিয়ে যাওয়া আসামি ফের গ্রেপ্তার৷ ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় শ্বাসরোধ করে কন্যাশিশুকে হত্যা করলো মা

মির্জাপুরে অর্ধশত পরিবার লকডাউন, প্রথম একজন করোণা ভাইরাসে আক্রান্ত।

images 26

খবর সারাদিন buy methenolone enanthate injectable রিপোর্ট : টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার ভাওড়া ইউনিয়নের ভাওড়া বৈরাগী পাড়া গ্রামে প্রথম এক ব্যক্তির করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। ঐ ব্যক্তি নারায়ণগঞ্জ থেকে করোনার উপসর্গ নিয়ে বাড়ি আসছিলেন। করোনা রোগী সনাক্ত হওয়ায় প্রশাসন থেকে ঐ গ্রামের ৪০-৫০টি পরিবার লকডাউন করা হয়েছে। প্রথম করোনা রোগী সনাক্ত হওয়ায় মির্জাপুরে আতংক ছড়িয়ে পড়েছে। আজ বুধবার ভাওড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. আমজাদ হোসেন জানান, ঐ ব্যক্তির নাম অনিল সরকার (৫০), পিতার নাম হরিদাস সরকার। তিনি নারায়নগঞ্জের একটি ক্লিনিকে কাজ করতেন। করোনা ভাইরাস সংক্রমন উপসর্গ (জ¦র, গলা ব্যথা, শরীর ব্যথা, সর্দি) নিয়ে গত রবিবার (৫ এপ্রিল) বাড়ি আসেন। আশপাশের লোকজনের সন্দেহ হলে তারা ঘটনাটি উপজেলা প্রশাসনকে জানায়।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আবদুল মালেক, সহকারী কমিশনার (ভুমি) মো. যুবায়ের হোসেন, মির্জাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ মো. সায়েদুর রহমান এবং উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা ডা. মাকসুদা খানম মেডিকেল টিম নিয়ে তার রক্তের পরীক্ষা করার জন্য ঢাকায় আইইডিসিআর এ পাঠান। এ সময় তার বাড়ি লগডাউন করা হয়। এ ব্যাপারে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা ডা. মাকসুদা খানম বলেন, রক্তের পরীক্ষার পর গতকাল মঙ্গলবার রিপোর্টে পজেটিভ ধরা পড়ে। মেডিকেল বোর্ড গঠন করে উপজেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় রাতেই তাকে ঢাকায় কুয়েত মৈত্রী হাসপাতালের আইসোলেশনে পাঠানো হয়েছে। গ্রামের ৪০-৫০ টি পরিবার লকডাউন করে দেওয়া হয়েছে।

এ ব্যাপারে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভুমি) ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. যুবায়ের হোসেন বলেন, করোনা ভাইরাসে সনাক্ত ব্যক্তিকে ঢাকায় কুয়েত মৈত্রী হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। উপজেলা প্রশাসন, মেডিকেল টিম ও আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা নিয়মিত কাজ করে যাচ্ছেন।

শেয়ার করুন

Sorry, no post hare.