,
শিরোনাম:
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগরে পূর্ব বিরোধের জের ধরে দুই পক্ষের সংঘর্ষে অর্ধশতাধিক লোক আহত ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বিভিন্ন ট্রেনের টিকেটসহ পাঁচ কালোবাজারি আটক, প্রায় অর্ধলক্ষ টাকা জব্দ আপেক্ষিক অর্থে বলা হয়েছে ৫০ বছর সময় লাগলেও সুষ্ঠ তদন্ত ও প্রকৃত অপরাধীদের ধরা হবে..ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আইনমন্ত্রী৷ ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় গণসংবর্ধণার জবাবে গণপূর্ত মন্ত্রী মোকতাদির চৌধুরী এমপি মজুদদারদের জরিমানা নয়, কারাগারে পাঠানোর অনুরোধ জানাই ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মাদক সেবন করে অশ্লীল আচরন করায় সাতজনকে কারাদন্ড অবৈধভাবে খাল কাটা ও ব্যক্তিগত রাস্তা নির্মানের প্রতিবাদে বিজয়নগরে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল বাঞ্ছারামপুরে পুকুরে মিললো কিশোরের হাত-পা বাধাঁ লাশ৷ রেডক্রিসেন্ট সোসাইটির উদ্যোগে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় শীতার্ত মানুষের মধ্যে ৮০০ কম্বল বিতরণ ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে চুরি করার অপবাদে যুবককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বিলের জমি থেকে অটো চালকের মরদেহ উদ্ধার

কাটা পা নিয়ে মধ্যযুগীয় উল্লাস! লক ডাউন ভেঙ্গে ব্রাক্ষনবাড়িয়ায় পৃথক সংর্ঘষে আহত অর্ধশত, ভাংচুর, আগুন

খবর সারাদিন রিপোর্ট : টাকশাল দিয়ে প্রতিপক্ষের পা কেটে বিজয় উল্লাস হয়েছে। কাটা পা নিয়ে গ্রামের অলিতে গলিতে হয়েছে মিছিল। বীভৎস এই চিত্র দেখে অনেকেই আতংকিত হয়ে পড়ে। রবিবার সকালে চাঞ্চল্যকর এই ঘটনা ঘটে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নবীনগর উপজেলার থানাকান্দি গ্রামে। স্থানীয়রা জানায়, এ গ্রামের আবু মেম্বার ও মুসলিম মেম্বারের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। এর জের ধরেই সকালে মুসলিম মেম্বারের লোকজনকে আবু মেম্বারের লোকজন হামলা করে। এ সময় আবু মেম্বারের নাতি হাজির হাটির মোবারক হোসেনকে ধাওয়া করলে আত্মরক্ষার জন্য সে বাড়িতে ঢুকে পড়ে। তখন সন্ত্রাসীরা তার ডান পা টাকশাল দিয়ে গোড়ালি পর্যন্ত কেটে ফেলে। পরে কাটা পা নিয়ে গ্রামের সড়কে সড়কে মিছিল করে। এ ঘটনায় সেখানে আতংক ছড়িয়ে পড়ে। রবিবারে সংঘর্ষের সময় অন্তত হাজির হাটির মোরসালিন (৩৫), জুয়েল (৩৫), দিন মোহাম্মদ (২৭), মনির (৩০)সহ ২০ জন আহত হয়েছে। আহতদের নবীনগর ও জেলা সদর হাসপাতালসহ বিভিন্নস্থানে প্রেরণ করা হয়েছে। সংর্ষকালে ১০/১৫ টি বাড়ি ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগ করা হয়। সংর্ঘষের ঘটনায় ২০জনকে আটক করেছে পুলিশ।
এদিকে, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে দুপক্ষের সংঘর্ষে আহত ৩০ ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে দুপক্ষের সংঘর্ষে ৩০ জন আহত হয়েছে। উপজেলার নোঁয়াগাও ইউনিয়নের আখিতাঁরা গ্রামে রবিবার সকাল থেকে কয়েক ঘন্টা ব্যাপী এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। পূর্ব বিরোধের জেরে নোঁয়াগাও ইউনিয়নের চেয়ারম্যান কাজল চৌধুরী ও আব্বাস মিয়ার গোষ্ঠির মধ্যে সকালে কথা কাটাকাটি হয়। পরে দু,পক্ষের লোকজন দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। পরে পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌছে টিয়ার শেল ও রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রণে আনে। সংঘর্ষে উভয় পক্ষের অন্তত ৩০জন লোক আহত হয়। আহতদের সরাইল সদর হাসপাতাল ও আশপাশের হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছে। পুলিশ জানায়, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে রয়েছে।

ওয়েব ডিজাইন ঘর

Sorry, no post hare.