,
শিরোনাম:
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগরে পূর্ব বিরোধের জের ধরে দুই পক্ষের সংঘর্ষে অর্ধশতাধিক লোক আহত ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বিভিন্ন ট্রেনের টিকেটসহ পাঁচ কালোবাজারি আটক, প্রায় অর্ধলক্ষ টাকা জব্দ আপেক্ষিক অর্থে বলা হয়েছে ৫০ বছর সময় লাগলেও সুষ্ঠ তদন্ত ও প্রকৃত অপরাধীদের ধরা হবে..ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আইনমন্ত্রী৷ ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় গণসংবর্ধণার জবাবে গণপূর্ত মন্ত্রী মোকতাদির চৌধুরী এমপি মজুদদারদের জরিমানা নয়, কারাগারে পাঠানোর অনুরোধ জানাই ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মাদক সেবন করে অশ্লীল আচরন করায় সাতজনকে কারাদন্ড অবৈধভাবে খাল কাটা ও ব্যক্তিগত রাস্তা নির্মানের প্রতিবাদে বিজয়নগরে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল বাঞ্ছারামপুরে পুকুরে মিললো কিশোরের হাত-পা বাধাঁ লাশ৷ রেডক্রিসেন্ট সোসাইটির উদ্যোগে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় শীতার্ত মানুষের মধ্যে ৮০০ কম্বল বিতরণ ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে চুরি করার অপবাদে যুবককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বিলের জমি থেকে অটো চালকের মরদেহ উদ্ধার

করোনা সন্দেহে গর্ভবতী নারীকে চিকিৎসকের লাঞ্ছনা প্রশাসনের রুদ্ধদ্বার বৈঠকে উত্তেজনা প্রশমণ

খবর সারাদি রিপোর্ট : করোনা সন্দেহে এক গভবর্তী নারীকে লাঞ্চিত করেছে ব্রাক্ষনবাড়িয়া সদর হাসপাতালের  এক চিকিৎসক। ঘটনা জানাজানি হওয়ার পর এ নিয়ে উত্তেজনা দেখা দেয়। পরিস্থিতি প্রশমন করতে জেলা প্রশাসক দ্রুত হস্তক্ষেপ করেন। সোমবার দুপুরে ব্রাক্ষনবাড়িয়া সদর হাসপাতালের শহীদ ডাক্তার মিলনায়তন সভাকক্ষে বিএমএ, স্বাচিব ও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ এবং রোগীর স্বজনদের সাথে রুদ্ধদ্ধার বৈঠক করে। ঘন্টাব্যাপী বৈঠকে চিকিৎসক ফৌজিয়া তার ভূল স্বীকার করে ক্ষমা প্রার্থনা করেন। বৈঠক শেষে জেলা প্রশাসক হায়াত উদ দৌলা খাঁন জানান, সমস্যার সমাধান করা হয়েছে। এখন থেকে তিনি এই রোগির সকল চিকিৎসা করবেন বলে দায়িত্ব নিয়েছেন। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন সকল রোগিদের চিকিৎসা নিশ্চিত করা হবে। জেলা আওয়ামলীগের সাধারণ সম্পাদক আল মামুন জানান, সমস্যা সমাধান হয়েছে। বৈঠকে অংশ গ্রহন করেন সদর হাসপাতালের তত্বাবধায়ক ডাক্তার শওকত হোসেন, বিএমএর সভাপতি ডাক্তার আবু সাইদসহ চিকিৎসক নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
জানাযায়, রবিবার জেলার নবীনগর উপজেলার কুড়িঘর গ্রামের মাওলানা জুনায়েদ আহমদ তার গর্ভবতী স্ত্রীকে নিয়ে হলিল্যাব হসপিটালে যান। সিরিয়াল অনুযায়ী গর্ভবতী নারী চেম্বারে প্রবেশ করলে ডাক্তার তাকে উত্তেজিত ভাষায় কথা বলতে থাকে। করোনা রোগী কি না এ নিয়ে তাকে লাঞ্চনা করে। তার স্বামী মাওলানা জোবায়ের এর যানাজায় গিয়েছিল কি না জানতে চান। এক পর্যায়ে চেম্বার থেকে ধাক্কা মেরে বের করে দেন। এক পর্যায়ে তিনি চিকিৎসা ছাড়াই বাড়ি ফেরত যান। এ খবর জানাজানি হলে নানা মহলে সমালোচনা শুরু হয়। প্রস্তুতি শুরু হয় মিছিলের। খবর পেয়ে ব্রাক্ষনাবাড়িয়া জেলা প্রশাসক তড়িৎ হস্তক্ষেপ করে সোমবার বৈঠক করে উত্তেজনা প্রশমন করেন।

ওয়েব ডিজাইন ঘর

Sorry, no post hare.