,
শিরোনাম:
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগরে পূর্ব বিরোধের জের ধরে দুই পক্ষের সংঘর্ষে অর্ধশতাধিক লোক আহত ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বিভিন্ন ট্রেনের টিকেটসহ পাঁচ কালোবাজারি আটক, প্রায় অর্ধলক্ষ টাকা জব্দ আপেক্ষিক অর্থে বলা হয়েছে ৫০ বছর সময় লাগলেও সুষ্ঠ তদন্ত ও প্রকৃত অপরাধীদের ধরা হবে..ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আইনমন্ত্রী৷ ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় গণসংবর্ধণার জবাবে গণপূর্ত মন্ত্রী মোকতাদির চৌধুরী এমপি মজুদদারদের জরিমানা নয়, কারাগারে পাঠানোর অনুরোধ জানাই ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মাদক সেবন করে অশ্লীল আচরন করায় সাতজনকে কারাদন্ড অবৈধভাবে খাল কাটা ও ব্যক্তিগত রাস্তা নির্মানের প্রতিবাদে বিজয়নগরে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল বাঞ্ছারামপুরে পুকুরে মিললো কিশোরের হাত-পা বাধাঁ লাশ৷ রেডক্রিসেন্ট সোসাইটির উদ্যোগে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় শীতার্ত মানুষের মধ্যে ৮০০ কম্বল বিতরণ ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে চুরি করার অপবাদে যুবককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বিলের জমি থেকে অটো চালকের মরদেহ উদ্ধার

ব্রাহ্মণবাড়িয়া মেডিক্যাল কলেজ কর্তৃপক্ষের সংবাদ সম্মেলন জাতীয় দৈনিকে প্রতিষ্ঠানটির করোনা টেস্ট নিয়ে প্রকাশিত রিপোর্ট অসত্য ও কল্পনা প্রসূত

মোজাম্মেল চৌধুরী : একটি জাতীয় দৈনিকে প্রতারনার ফাঁদ “রূপপুর থেকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া” শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেছে ব্রাহ্মণবাড়িয়া মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতাল কৃর্তপক্ষ। বৃহস্পতিবার দুপুরে ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাব হলরুমে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলেনে এ বিষয়ে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন, কলেজের মাইক্রোবায়োলজি বিভাগের প্রধান ও পিসিআর ল্যাব ইনচার্জ অধ্যাপক ডাক্তার জাকিউর রহমান। লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, অত্র প্রতিষ্ঠানটি সম্পূর্ণরুপে সরকার কৃর্তক অনুমোদিত এবং করোনা মহামারিতে ১০০ শয্যা বিশিষ্ট এই করোনা হাসসপাতাল ও পিসিআর ল্যাবটি নিরবিচ্ছিন্নভাবে সেবা দিয়ে যাচ্ছে। সম্প্রতি একটি জাতীয় দৈনিকে আমাদের প্রতিষ্ঠান এবং প্রতিষ্ঠানটির প্রধান ডাক্তার মোঃ আবু সাঈদের সম্পর্কে মনগড়া সংবাদ প্রকাশ করে তার সুনাম ক্ষুন্ন করার চেষ্টা করা হয়েছে। যা উদ্দেশ্য প্রনদিত। লিখিত বক্তব্যে আরো উল্লেখ করা হয়, গত ০৬ জুলাই পাবনার জেলার রূপপুরের একটি ডায়াগনস্টিক সেন্টার থেকে ৫০টি স্যাম্পল করোনা পরীক্ষার জন্য নিয়ে আসে। এনালাইসিস ও পরীক্ষার মাধ্যমে ১১টি পজিটিভ ও ৩৯ টি নেগেটিভ রিপোর্ট দেয়া হয়। যা ইমেলের মাধ্যমে রূপপুরের রিপোর্টসহ ৭৭টি রিপোর্ট স্বাস্থ্য অধিদপ্তর, চট্রগ্রাম বিভাগীর কার্যালয়, পাবনা ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সিভিল সার্জন অফিসে নিয়ম মাফিক প্রেরণ করা হয়। এসব পরীক্ষার এনালাইসিসসহ রিপোর্ট গ্রাফ পিসিআর মেশিনের মেমোরিতে সংরক্ষিত রয়েছে। তদন্ত না করেই একজন সম্মানিত ব্যক্তিকে মিথ্যা মামলায় জড়ানো হয়েছে বলে সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করা হয়। এ ছাড়া তদন্তের আগেই বর্ণিত মিথ্যা মামলার বিষয়ে প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তির সুনাম ক্ষুন্ন করতে বর্তমান প্রতিষ্ঠানটিতে তালা ঝুলছে চেয়ারম্যানের স্বাক্ষর রয়েছে এবং অর্থ হাতিয়ে নিয়ে প্রতারনা করা হয়েছে বলে উল্লেখ করা হয় যা সম্পূর্ণ অসত্য বানোয়াট ও কল্পনা প্রসূত। সংবাদ সম্মেলনে প্রতিষ্ঠানটির অধ্যক্ষ অব: বিগ্রেডিয়ার জেনারেল শফিকুল ইসলাম, ডেপুটি ম্যানেজার আছাদুল্লাহ মিয়া, ল্যাব ইনচার্জ এস.এম জুনায়েদ ইসলামসহ বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ার সংবাদকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

ওয়েব ডিজাইন ঘর

Sorry, no post hare.