,
শিরোনাম:
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগরে পূর্ব বিরোধের জের ধরে দুই পক্ষের সংঘর্ষে অর্ধশতাধিক লোক আহত ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বিভিন্ন ট্রেনের টিকেটসহ পাঁচ কালোবাজারি আটক, প্রায় অর্ধলক্ষ টাকা জব্দ আপেক্ষিক অর্থে বলা হয়েছে ৫০ বছর সময় লাগলেও সুষ্ঠ তদন্ত ও প্রকৃত অপরাধীদের ধরা হবে..ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আইনমন্ত্রী৷ ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় গণসংবর্ধণার জবাবে গণপূর্ত মন্ত্রী মোকতাদির চৌধুরী এমপি মজুদদারদের জরিমানা নয়, কারাগারে পাঠানোর অনুরোধ জানাই ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মাদক সেবন করে অশ্লীল আচরন করায় সাতজনকে কারাদন্ড অবৈধভাবে খাল কাটা ও ব্যক্তিগত রাস্তা নির্মানের প্রতিবাদে বিজয়নগরে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল বাঞ্ছারামপুরে পুকুরে মিললো কিশোরের হাত-পা বাধাঁ লাশ৷ রেডক্রিসেন্ট সোসাইটির উদ্যোগে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় শীতার্ত মানুষের মধ্যে ৮০০ কম্বল বিতরণ ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে চুরি করার অপবাদে যুবককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বিলের জমি থেকে অটো চালকের মরদেহ উদ্ধার

খন্দকার জাফরের শূন্যতা পূর্ণ হওয়ার নয়, এরশাদ ট্রাস্টের চেয়ারম্যান কাজী মামুন-

খবর সারাদিন রিপোর্ট : ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার জাতীয় পার্টি’র যুগ্ম আহবায়ক, রসুল্লাবাদ ইউনিয়ন জাতীয়পার্টি’র সভাপতি খন্দকার আবু জাফরের স্মরণে শোক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
শনিবার দুপুরে উপজেলার রসুল্লাবাদ দাখিল মাদ্রাসা মাঠে এই শোক অনুষ্ঠিত হয়।
এসময় উপজেলা জাতীয় যুব সংহতীর সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ আলামিনের সঞ্চালনায় জাতীয় পার্টি নেতা ক্যাপ্টেন (অব.) জিল্লোর রহমানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২আসনের সাবেক সাংসদ এডভোকেট জিয়াউল হক মৃধা।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে অ্যাডভোকেট জিয়াউল হক মৃধা এমপি বলেছেন, আগামীতে আমরা চাই তার কাছে গতিশীল নেতৃত্ব। নবীনগরে আজকে কাজী মামুনের নেতৃত্বে এ শোক সভায় হাজারো মানুষ দল-মত নির্বিশেষে যোগদানের মধ্য দিয়ে  প্রমাণিত হয় কাজী মামুনের নেতৃত্বে এখানে জাতীয় পার্টি ঐক্যবদ্ধ।
অনুষ্ঠিত ওই শোক সভায় প্রধান বক্তা ছিলেন এরশাদ ট্রাস্টের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব কাজী মোঃ মামুনুর রশিদ। এসময় তিনি জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের রুহের মাগফেরাত কামনা করে বলেন, হোসাইন মোহাম্মদ এরশাদ কে মানুষ ভালোবাসে দেখেই আজকে এই শোক সভা জনসমুদ্র পরিণত হয়েছে। খন্দকার জাফরের স্মৃতিচারণ করে তিনি আরো বলেন, তার শূন্যতা পূর্ণ হওয়ার নয়। তিনি ছিলেন নবীনগরের জাতীয় পার্টির নয়নের মনি।
এসময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, রসুল্লাবাদ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ আলী আকবর, রসুল্লাবাদ ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি খন্দকার মনির হোসেন, নবীনগর উপজেলা জাতীয় পার্টি’র সভাপতি হাজী রজ্জব আলী মোল্লা, উপজেলা জাতীয় পার্টি’র সাধারণ সম্পাদক মোছলেম উদ্দীন মৃধা, জেলা জাতীয় যুব সংহতি’র সাবেক সভাপতি সৈয়দ মোকাব্বের হোসেন, পৌর জাতীয় পার্টি’র সভাপতি ইদন খান, জেলা যুব সংহতি’র সাবেক সভাপতি শেখ মোহাম্মদ ইয়াছিন, জেলা জাতীয় পার্টি’র সদস্য আনিছ খান, পৌর জাতীয় পার্টি’র সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কুদ্দুছ ও জেলা-উপজেলা জাতীয় পার্টির বহু নেতৃবৃন্দ সহ আরো অনেকে।
ওয়েব ডিজাইন ঘর

Sorry, no post hare.