,
শিরোনাম:
বিএনপি তাদের শাসনামলে যুদ্ধাপরাধী ও রাজাকার আলবদরদের সঙ্গে নিয়ে পাকিস্তানের দালাল হয়ে বাংলাদেশের জনগণকে শোষণ ও অত্যাচার করত : আইন মন্ত্রী আনিসুল হক ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ম্যারাথন প্রতিযোগীতা অনুষ্ঠিত ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় টিসিবির পণ্য বিক্রয় মন্দির ভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রমের গুরুত্ব ব্যাপক উপজেলা পরিষদের নির্বাচন আখাউড়ায় নির্বাচনী সভায় ভুড়িভোজের আয়োজন \ বিরিয়ানি মাদরাসায় দিলেন ম্যাজিস্ট্রেট ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মোটরসাইকেল ও সিএনজি অটোরিক্সার মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত-১/ আহত-৫ এসএসসি পরীক্ষার ফলাফল-জিপিএ-৫-এ ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় অন্নদা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় সেরা ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আসামী ধরতে গিয়ে নারীর কপালে পিস্তল ঠেকিয়ে গুলি করল ডিবি ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা ছাত্রলীগের কর্মী সমাবেশ চলাকালে সংঘর্ষে ৩ জন আহত স্মার্ট বাংলাদেশ গঠনের লড়াইয়ে ছাত্রলীগকে সর্বতোভাবে পাশে থাকার আহ্বান-গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার এলজিইডিতে নির্বাহী প্রকৌশলীর গোপন লটারিতে কাজ, ঠিকাদারদের ক্ষোভ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার এলজিইডির সভাকক্ষ scaled

খবর সারাদিন রিপোর্ট : রবিবার বিকেলে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ঠিকাদারদের অনুপস্থিতিতে ও গোপন লটারির মাধ্যমে পছন্দের তিন ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে কাজ পাইয়ে দেওয়ার অভিযোগে এলজিইডি কার্যালয়ে তুলকালাম কান্ড ঘটেছে। সকাল সাড়ে ১১টা থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত উত্তেজনাকর পরিস্থিতি বিরাজ করে কার্যালয় জুড়ে। এসময় পুলিশ এলজিইডির চত্বরে অবস্থান করছিলেন।
এ সময় এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলী শিরাজুল ইসলাম ও কাজে প্রত্যাশী ঠিকাদারদের সাথে চরম বাদানুবাদ হয়। এ সময় গোপন লটারিতে কাজ পাইয়ে দেয়ার ঘটনায় সকল ঠিকাদারদের মাঝে ক্ষোভ ও হতাশা দেখা দেয়। যদিও শেষ পর্যন্ত নির্বাহী প্রকৌশলী গোপন লটারিতে পাওয়া কাজগুলো বাতিল করে পুণঃ লটারি গ্রহণের ঘোষনা দেন।
খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার অভ্যন্তরে বিভিন্ন সড়ক সংঙ্কারের জন্য ৩৬টি দরপত্রের আহবান করে। বিকেল সাড়ে ৪টায় এলজিইডির সভাকক্ষে ঠিকাদারদের উপস্থিতিতে লটারির মাধ্যমে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান নির্বাচন করার কথা। অথচ এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলী শিরাজুল ইসলাম  সকালে অফিসে এসে কম্পিউটার অপারেটর তরিকুল ইসলামকে সাথে নিয়ে দ্রুত পছন্দের ৩জন ঠিকাদারের মাঝে লটারীর মাধ্যমে কাজ দিয়ে দেন। দরপত্রের বাকি কাজগুলো বিকেলে লটারীর মাধ্যমে দিবেন বলে অফিস থেকে জানানো হয়।
একাধিক ঠিকাদার অভিযোগ করে বলেন, ৩৬টি কাজের দরপত্র  রবিবার বিকেলে লটারির মাধ্যমে ঘোষনা দেয়ার কথা নোটিশের মাধ্যমে জানানো হয়। অথচ নির্বাহী প্রকৌশলী শিরাজুল ইসলাম ও কম্পিউটার অপারেটর তরিকুল ইসলামের যোগসাজশে পছন্দের ঠিকাদারদের কাছ থেকে সুবিধা নিয়ে সকাল ১১টায় সদরের ৩টি কাজ গোপন লটারীর মাধ্যমে দিয়ে দেন। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে দরপত্রে অংশগ্রহনকারী সকল ঠিকাদার এলজিইডি ভবনে উপস্থিত হই। এই সময় নির্বাহী প্রকৌশলী ও কম্পিউটার অপারেটর অফিসে উপস্থিত ছিলেন না। বিকেলে লটারীর সময় নির্বাহী প্রকৌশলী উপস্থিত হলে বিক্ষুব্ধ ঠিকাদারদের প্রতিরোধের মুখে পড়েন। এই সময় ঠিকাদাররা তার পদত্যাগ দাবী করে বিক্ষোভ করেন। পরে নির্বাহী প্রকৌশলী শিরাজুল ইসলাম গোপনে লটারীর মাধ্যমে দেয়া ৩টি কাজ পুনরায় সকলের উপস্থিতিতে লটারী দেয়া হবে বলে লিখিত দেন।
নির্বাহী প্রকৌশলী শিরাজুল ইসলাম এর সত্যতা স্বীকার করে বলেন, গোপন লটারীকৃত ৩টি কাজ পুনরায় সকল ঠিকাদারদের উপস্থিতিতে লটারী অনুষ্টিত হবে।

শেয়ার করুন

Sorry, no post hare.