,
শিরোনাম:
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ভাগ্নে-ভাগ্নিকে হত্যার দায়ে মামার মৃত্যুদন্ড ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় কোটা আন্দোলনকারীদের সাথে ছাত্রলীগের সংঘর্ষ – ওসিসহ আহত-২০ , ককটেল বিস্ফোরণ ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় কোটা আন্দোলনকারীদের সাথে ছাত্রলীগের ধাওয়া পালটা ধাওয়া \ বেশ কয়েকজন আহত, ককটেল বিস্ফোরণ নবীনগরে তিন শতাধিক অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ নান্দনিক আবৃত্তির মধ্য দিয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া মাতিয়ে গেলেন ভারতের আবৃত্তি সংস্থা শ্রুতি সালিশ সভায় চেয়ারম্যানের নির্দেশে নারীকে নির্যাতন বিজয়নগরে বর্তমান ও সাবেক ইউপি সদস্য গ্রেপ্তার ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার ও অবৈধ পাচার বিরোধী আন্তর্জাতিক দিবস পালিত জনপ্রতিনিধিদের ক্ষমতার পরিধির মধ্যে থেকে এলাকার উন্নয়নে কাজ করতে হবে- গণপূর্ত মন্ত্রী বৃক্ষায়নের জায়গা না রেখে নতুন বাড়ি বা ভবন নির্মাণের অনুমতি দেয়া হবে না- গণপূর্ত মন্ত্রী ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মাদক কারবারের বিরোধে নারীকে হত্যা, গ্রেফতার ৩

ইউক্রেনে রাশিয়ার যুদ্ধের নিন্দার ঝড়

original
  • জি-২০র নেতারা এবারের সম্মেলনে ইউক্রেনে রাশিয়ার আগ্রাসনের তীব্র নিন্দা করেছেন। বুধবার ইন্দোনেশিয়ার বালিতে দুই দিনের ‘জি-২০’ এর শীর্ষ সম্মেলনের শেষে নেতাদের একটি ঘোষণায় ইউক্রেন থেকে রাশিয়ান সেনাদের নিঃশর্ত প্রত্যাহারের আহ্বান জানানো হয়েছে। বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

 

প্রতিবেদনে বলা হয়, শীর্ষ সম্মেলনে বিশ্বের বৃহত্তম অর্থনীতির নেতারা মুদ্রা বাজারে অস্থিরতা রোধে সতর্কতার সাথে পদক্ষেপ নিতে সম্মত হন। তবে সম্মেলনে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে ছিল রাশিয়া ও ইউক্রেন যুদ্ধ।

রাশিয়া ‘জি-২০’ সদস্যভুক্ত দেশ। সম্মেলনে রাশিয়ার কথা উল্লেখ করে এক ঘোষণায় বলা হয়, অধিকাংশ সদস্য ইউক্রেনের যুদ্ধের তীব্র নিন্দা করেছেন। এই ঘোষণার বিরোধিতা করেছে রাশিয়া।

ঘোষণায় পরিস্থিতি ও নিষেধাজ্ঞা ঘিরে ভিন্নমত ও মূল্যায়নের বিষয়টিরও স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছে। তবে তিনজন কূটনীতিক জানিয়েছেন, সম্মেলনে সর্বসম্মতিক্রমে ঘোষণাটি গৃহীত হয়েছে।

‘জি-২০’ এর নেতারা ঘোষণায় আরও জানান, পারমাণবিক অস্ত্র ব্যবহারের হুমকি অগ্রহণযোগ্য। শান্তি ও স্থিতিশীলতা বজায় রাখতে আন্তর্জাতিক আইন ও বহুপাক্ষিকটা মেনে চলা অপরিহার্য।

এতে রাশিয়া ও ইউক্রেন যুদ্ধের নিন্দা করা হয়। কারণ এতে দেশের সীমানা ও অখণ্ডতা লঙ্ঘন হয়েছে। চীন সম্মেলনের এ ঘোষণায় কোনো প্রতিক্রিয়া জানায়নি।

সম্মেলনের আয়োজক দেশ ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্ট জোকো উইদোদো জানান,ইউক্রেনের যুদ্ধ সবচেয়ে বিতর্কিত বিষয়। এই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া খুব কঠিন ছিল। শেষ পর্যন্ত, ‘জি-২০’ নেতারা ঘোষণার বিষয়বস্তুতে একমত হয়েছেন।

শেয়ার করুন

Sorry, no post hare.