,
শিরোনাম:
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় কোটা আন্দোলনকারীদের সাথে ছাত্রলীগের ধাওয়া পালটা ধাওয়া \ বেশ কয়েকজন আহত, ককটেল বিস্ফোরণ নবীনগরে তিন শতাধিক অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ নান্দনিক আবৃত্তির মধ্য দিয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়া মাতিয়ে গেলেন ভারতের আবৃত্তি সংস্থা শ্রুতি সালিশ সভায় চেয়ারম্যানের নির্দেশে নারীকে নির্যাতন বিজয়নগরে বর্তমান ও সাবেক ইউপি সদস্য গ্রেপ্তার ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার ও অবৈধ পাচার বিরোধী আন্তর্জাতিক দিবস পালিত জনপ্রতিনিধিদের ক্ষমতার পরিধির মধ্যে থেকে এলাকার উন্নয়নে কাজ করতে হবে- গণপূর্ত মন্ত্রী বৃক্ষায়নের জায়গা না রেখে নতুন বাড়ি বা ভবন নির্মাণের অনুমতি দেয়া হবে না- গণপূর্ত মন্ত্রী ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মাদক কারবারের বিরোধে নারীকে হত্যা, গ্রেফতার ৩ আখাউড়া থানার হাজত কক্ষের গ্রিল ভেঙে পালিয়ে যাওয়া আসামি ফের গ্রেপ্তার৷ ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় শ্বাসরোধ করে কন্যাশিশুকে হত্যা করলো মা

বৈষম্য দূর করার বার্তা নিয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ভারতীয় যুবক

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ভারতীয় যুবককে ফুলেল শুভেচ্ছা
খবর সারাদিন রিপোর্টঃ লিঙ্গ, জাতি, বর্ণসহ সব ধরনের বৈষম্য দূর করার বার্তা নিয়ে বাংলাদেশের ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় অবস্থান করছেন ভারতীয় নাগরিক দ্বিরাজ কুমার গুপ্তা। ভারতের বিভিন্ন রাজ্য ঘুরে এবার বাংলাদেশে এসেছেন বিহারের এই তরুণ। ১৩ নভেম্বর সিলেটের তামাবিল সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করেন ধিরাজ। তারপর সিলেট, শ্রীমঙ্গল, হবিগঞ্জসহ ৫টি জেলায় ঘুরে শুক্রবার সন্ধ্যায় তিনি ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় এসে পৌছান। শনিবার সকালে শহরের লোকনাথ দীঘির টেংকেরপাড় এলাকায় পৌছলে ভোরের সাথী ও রানার্স কমিউনিটির পক্ষ থেকে তাকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়। আগামী ২০দিন সাইকেল নিয়ে দেশের বিভিন্ন জেলায় ঘুরবেন তিনি। এরপর তিনি ঢাকা হয়ে বেনাপোল বন্দর দিয়ে ভারতের পশ্চিমবঙ্গে প্রবেশ করবেন।
জানাযায়, ২০২১ সালের ১১ নভেম্বর থেকে সাইকেল যাত্রা শুরু করেন ভারতের বিহার প্রদেশের জেহানাবাদ জেলার নেওয়ারী নওঘর গ্রামের পানচু সাবের ছেলে দ্বিরাজ। তিনি বর্তমানে দিল্লির আম্বেতকার বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি করছেন। পাঞ্জাব, দিল্লি, বিহার, সিকিম, আসাম, ত্রিপুরা, মেঘালয়সহ এ পর্যন্ত ভারতের ১৪টি রাজ্য সাইকেল নিয়ে ঘুরেছেন।
২০১৯ সালে পাঞ্জাবের একটি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমফিল করা দ্বিরাজ বলেন, ছোটবেলা থেকে প্রচুর বৈষম্য দেখেছি। আমাদের দেশে লিঙ্গ ও বর্ণের পাশাপাশি জাত নিয়েও বৈষম্য প্রবল। একসময় ভাবলাম, বৈষম্য দূর করার জন্য কিছু একটা করা দরকার। সেই ভাবনা থেকেই সাইকেল ভ্রমণ। ২০২১ সালের ১১নভেম্বর শুরু হয় দ্বিরাজের সাইকেল যাত্রা। প্রাথমিক ভাবে বাংলাদেশে আসার কোন পরিকল্পনা ছিল না। আমার পরবর্তী গন্তব্য পশ্চিমবঙ্গ। আসাম থেকে বাংলাদেশের ভেতর দিয়ে পশ্চিমবঙ্গ যাওয়া সহজ। তাই এখানে এসেছি।
তিনি জানান, যেহেতু এসেছি তাই বাংলাদেশেও বিদ্বেষের বিরুদ্ধে মানুষকে সচেতন করতে কাজ করব। পাশাপাশি ভারত ও বাংলাদেশের সংস্কৃতি ও মানুষ সর্ম্পকে জানতে আমার এই যাত্রা। এদেশের মানুষের আতিথিয়েতা ও উষ্ণ অর্ভ্যথনায় আমি মুগ্ধ। ২০ দিন বাংলাদেশের বিভিন্ন এলাকা ঘুরে এই আহ্বান জানাব। দীর্ঘ ১ বছর ৮ দিনে এখন পর্যন্ত ৯৪৫০ কিলোমিটার যাত্রা পাড়ি দিয়েছি।
বাংলাদেশে সাইকেল কমিউনিটির সদস্যরা দ্বিরাজকে সহায়তা করছেন জানিয়ে ৬৪ জেলায় বাইসাইকেল রাইডার ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ভাদুঘর এলাকার হাফেজ আব্দুল্লাহ আল নোমান বলেন, ধিরাজের উদ্দেশ্য খুব ভাল। রাইডাররা তাকে সহায়তা করছেন। বাংলাদেশের বিভিন্ন এলাকার রাইডাররা তাকে সহায়তা করছেন।

শেয়ার করুন

Sorry, no post hare.