,
শিরোনাম:
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বিজয়নগরে পূর্ব বিরোধের জের ধরে দুই পক্ষের সংঘর্ষে অর্ধশতাধিক লোক আহত ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বিভিন্ন ট্রেনের টিকেটসহ পাঁচ কালোবাজারি আটক, প্রায় অর্ধলক্ষ টাকা জব্দ আপেক্ষিক অর্থে বলা হয়েছে ৫০ বছর সময় লাগলেও সুষ্ঠ তদন্ত ও প্রকৃত অপরাধীদের ধরা হবে..ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আইনমন্ত্রী৷ ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় গণসংবর্ধণার জবাবে গণপূর্ত মন্ত্রী মোকতাদির চৌধুরী এমপি মজুদদারদের জরিমানা নয়, কারাগারে পাঠানোর অনুরোধ জানাই ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মাদক সেবন করে অশ্লীল আচরন করায় সাতজনকে কারাদন্ড অবৈধভাবে খাল কাটা ও ব্যক্তিগত রাস্তা নির্মানের প্রতিবাদে বিজয়নগরে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল বাঞ্ছারামপুরে পুকুরে মিললো কিশোরের হাত-পা বাধাঁ লাশ৷ রেডক্রিসেন্ট সোসাইটির উদ্যোগে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় শীতার্ত মানুষের মধ্যে ৮০০ কম্বল বিতরণ ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে চুরি করার অপবাদে যুবককে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বিলের জমি থেকে অটো চালকের মরদেহ উদ্ধার

বৈষম্য দূর করার বার্তা নিয়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ভারতীয় যুবক

খবর সারাদিন রিপোর্টঃ লিঙ্গ, জাতি, বর্ণসহ সব ধরনের বৈষম্য দূর করার বার্তা নিয়ে বাংলাদেশের ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় অবস্থান করছেন ভারতীয় নাগরিক দ্বিরাজ কুমার গুপ্তা। ভারতের বিভিন্ন রাজ্য ঘুরে এবার বাংলাদেশে এসেছেন বিহারের এই তরুণ। ১৩ নভেম্বর সিলেটের তামাবিল সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করেন ধিরাজ। তারপর সিলেট, শ্রীমঙ্গল, হবিগঞ্জসহ ৫টি জেলায় ঘুরে শুক্রবার সন্ধ্যায় তিনি ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় এসে পৌছান। শনিবার সকালে শহরের লোকনাথ দীঘির টেংকেরপাড় এলাকায় পৌছলে ভোরের সাথী ও রানার্স কমিউনিটির পক্ষ থেকে তাকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়। আগামী ২০দিন সাইকেল নিয়ে দেশের বিভিন্ন জেলায় ঘুরবেন তিনি। এরপর তিনি ঢাকা হয়ে বেনাপোল বন্দর দিয়ে ভারতের পশ্চিমবঙ্গে প্রবেশ করবেন।
জানাযায়, ২০২১ সালের ১১ নভেম্বর থেকে সাইকেল যাত্রা শুরু করেন ভারতের বিহার প্রদেশের জেহানাবাদ জেলার নেওয়ারী নওঘর গ্রামের পানচু সাবের ছেলে দ্বিরাজ। তিনি বর্তমানে দিল্লির আম্বেতকার বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি করছেন। পাঞ্জাব, দিল্লি, বিহার, সিকিম, আসাম, ত্রিপুরা, মেঘালয়সহ এ পর্যন্ত ভারতের ১৪টি রাজ্য সাইকেল নিয়ে ঘুরেছেন।
২০১৯ সালে পাঞ্জাবের একটি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমফিল করা দ্বিরাজ বলেন, ছোটবেলা থেকে প্রচুর বৈষম্য দেখেছি। আমাদের দেশে লিঙ্গ ও বর্ণের পাশাপাশি জাত নিয়েও বৈষম্য প্রবল। একসময় ভাবলাম, বৈষম্য দূর করার জন্য কিছু একটা করা দরকার। সেই ভাবনা থেকেই সাইকেল ভ্রমণ। ২০২১ সালের ১১নভেম্বর শুরু হয় দ্বিরাজের সাইকেল যাত্রা। প্রাথমিক ভাবে বাংলাদেশে আসার কোন পরিকল্পনা ছিল না। আমার পরবর্তী গন্তব্য পশ্চিমবঙ্গ। আসাম থেকে বাংলাদেশের ভেতর দিয়ে পশ্চিমবঙ্গ যাওয়া সহজ। তাই এখানে এসেছি।
তিনি জানান, যেহেতু এসেছি তাই বাংলাদেশেও বিদ্বেষের বিরুদ্ধে মানুষকে সচেতন করতে কাজ করব। পাশাপাশি ভারত ও বাংলাদেশের সংস্কৃতি ও মানুষ সর্ম্পকে জানতে আমার এই যাত্রা। এদেশের মানুষের আতিথিয়েতা ও উষ্ণ অর্ভ্যথনায় আমি মুগ্ধ। ২০ দিন বাংলাদেশের বিভিন্ন এলাকা ঘুরে এই আহ্বান জানাব। দীর্ঘ ১ বছর ৮ দিনে এখন পর্যন্ত ৯৪৫০ কিলোমিটার যাত্রা পাড়ি দিয়েছি।
বাংলাদেশে সাইকেল কমিউনিটির সদস্যরা দ্বিরাজকে সহায়তা করছেন জানিয়ে ৬৪ জেলায় বাইসাইকেল রাইডার ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ভাদুঘর এলাকার হাফেজ আব্দুল্লাহ আল নোমান বলেন, ধিরাজের উদ্দেশ্য খুব ভাল। রাইডাররা তাকে সহায়তা করছেন। বাংলাদেশের বিভিন্ন এলাকার রাইডাররা তাকে সহায়তা করছেন।

ওয়েব ডিজাইন ঘর

Sorry, no post hare.