,
শিরোনাম:
বিএনপি তাদের শাসনামলে যুদ্ধাপরাধী ও রাজাকার আলবদরদের সঙ্গে নিয়ে পাকিস্তানের দালাল হয়ে বাংলাদেশের জনগণকে শোষণ ও অত্যাচার করত : আইন মন্ত্রী আনিসুল হক ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ম্যারাথন প্রতিযোগীতা অনুষ্ঠিত ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় টিসিবির পণ্য বিক্রয় মন্দির ভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রমের গুরুত্ব ব্যাপক উপজেলা পরিষদের নির্বাচন আখাউড়ায় নির্বাচনী সভায় ভুড়িভোজের আয়োজন \ বিরিয়ানি মাদরাসায় দিলেন ম্যাজিস্ট্রেট ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মোটরসাইকেল ও সিএনজি অটোরিক্সার মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত-১/ আহত-৫ এসএসসি পরীক্ষার ফলাফল-জিপিএ-৫-এ ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় অন্নদা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় সেরা ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আসামী ধরতে গিয়ে নারীর কপালে পিস্তল ঠেকিয়ে গুলি করল ডিবি ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা ছাত্রলীগের কর্মী সমাবেশ চলাকালে সংঘর্ষে ৩ জন আহত স্মার্ট বাংলাদেশ গঠনের লড়াইয়ে ছাত্রলীগকে সর্বতোভাবে পাশে থাকার আহ্বান-গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মতবিনিময় ঔষধ কোম্পানির বিক্রয় প্রতিনিধিরা ব্যবস্থাপত্রের ছবি তুলায় রোগীর গোপনীয়তা নষ্ট হচ্ছে’

20221129 121112 1 scaled

খবর সারাদিন রিপোর্টঃ চিকিৎসকের কক্ষ থেকে বের হলেই ঔষধ কোম্পানির বিক্রয় প্রতিনিধিরা ব্যবস্থাপত্রের (প্রেসক্রিপশন) ছবি তুলেন বলে রোগীদের গোপনীয়তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। মঙ্গলবার ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেনারেল হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক) ও ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) এর সহযোগিতায় অ্যাকটিভ সিটিজেন গ্রুপ আয়োজিত মতবিনিময় সভায় এ প্রশ্ন তোলা হয়। এ সময় উপস্থিত এক চিকিৎসকও জানিয়েছেন যে, তার স্ত্রী এমন বিড়ম্বনার মধ্যে পড়েছিলেন।

হাসপাতালের সম্মেলন কক্ষে হওয়া এ মত বিনিময় সভায় আরো অভিযোগ করা হয়, হাসপাতালে অ্যাম্বুলেন্স সিন্ডিকেট বেশ সক্রিয়। জরুরি বিভাগে চিকিৎসক স্বল্পতার কারণে সেবা কাজ ব্যাহত হচ্ছে। জানানো হয় দালাল চক্র সক্রিয় থাকার কথা। এছাড়া অপর্যাপ্ত ঔষধ সরবরাহসহ নানা ধরণের অভিযোগ করা হয় ওই মত বিনিময় সভায়। এসব সমস্যা সমাধানে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিবেন বলেও জানানো হয়।
মতবিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করেন সনাক সভাপতি মো. রফিকুল ইসলাম।
প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন হাসপাতালের তত্বাবধায়ক মো. ওয়াহিদুজ্জামান। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, সনাক সদস্য মোহাম্মদ আরজু, হাসপাতালের আরএমও মো. ফয়জুর রহমান, আরএমও মো. সুমন ভূইঁয়া, টিআইবি’র এরিয়া কো-অর্ডিনেটর আবুল কালাম আজাদ, কালের কণ্ঠের ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি বিশ্বজিৎপাল বাবু, নদী ভিত্তিক সংগঠন নোঙর এর সভাপতি শামীম আহমেদ, মাছরাঙা টেলিভিশনের প্রতিনিধি আশিক মান্নান হিমেল প্রমুখ।
হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ দাবি করেছে, এখানে সেবার মান অনেক বেড়েছে। প্রতিদিন এ হাসপাতালের জরুরি বিভাগ থেকে প্রায় তিন হাজার রোগী চিকিৎসা সেবা নেয়। আগে প্রতিমাসে ১০-১২ লাখ টাকা আয় হলেও গত কয়েকমাস ধরে ২৪ লাখ টাকার নিচে হয় না। দালালসহ অন্যাসন্য অপরাধীদের ঠেকাতে নিয়মিত পুলিশ পাহারা বসানো হয়েছে। চতুর্থ শ্রেণির ৯১ জন কর্মচারির চাহিদা দেওয়া হলে অন্তত ৭১ জন নিয়োগের বিষয়টি চুড়ান্ত পর্যায়ে।
ব্যবস্থাপত্রের ছবি তোলার বিষয়ে হাসপাতালের তত্বাবধায়ক মো. ওয়াহিদুজ্জামান বলেন, ‘বিষয়টি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। ঔষধ কোম্পানির বিক্রয় প্রতিনিধিদেরকে সপ্তাহে একদিন এক ঘন্টার জন্য আসতে নির্দেশনা দেওয়া আছে। ব্যবস্থাপত্রের ছবি তুলতেও নিষেধ করা আছে। বিষয়টি নিয়ে প্রয়োজনে তাদের সাথে আবার বসে কথা বলা হবে।’
শেয়ার করুন

Sorry, no post hare.