,
শিরোনাম:
বিএনপি তাদের শাসনামলে যুদ্ধাপরাধী ও রাজাকার আলবদরদের সঙ্গে নিয়ে পাকিস্তানের দালাল হয়ে বাংলাদেশের জনগণকে শোষণ ও অত্যাচার করত : আইন মন্ত্রী আনিসুল হক ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ম্যারাথন প্রতিযোগীতা অনুষ্ঠিত ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় টিসিবির পণ্য বিক্রয় মন্দির ভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রমের গুরুত্ব ব্যাপক উপজেলা পরিষদের নির্বাচন আখাউড়ায় নির্বাচনী সভায় ভুড়িভোজের আয়োজন \ বিরিয়ানি মাদরাসায় দিলেন ম্যাজিস্ট্রেট ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মোটরসাইকেল ও সিএনজি অটোরিক্সার মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত-১/ আহত-৫ এসএসসি পরীক্ষার ফলাফল-জিপিএ-৫-এ ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় অন্নদা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় সেরা ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আসামী ধরতে গিয়ে নারীর কপালে পিস্তল ঠেকিয়ে গুলি করল ডিবি ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা ছাত্রলীগের কর্মী সমাবেশ চলাকালে সংঘর্ষে ৩ জন আহত স্মার্ট বাংলাদেশ গঠনের লড়াইয়ে ছাত্রলীগকে সর্বতোভাবে পাশে থাকার আহ্বান-গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী

দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে মাদ্রাসার সহকারী অধ্যাপক রশিদুল ইসলামকে শারীরিক নির্যাতনের প্রতিবাদে হামলাকারীদের শাস্তির দাবিতে মানবন্ধন কর্মসূচি পালীত

Screenshot 20230605 173806 Drive
খবর সারাদিন রিপোর্ট : দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে মাদ্রাসার সহকারী অধ্যাপক রশিদুল ইসলামকে শারীরিক নির্যাতনের প্রতিবাদে হামলাকারীদের শাস্তির দাবিতে মানবন্ধন কর্মসূচি পালন করেছেন মাদ্রাসার শিক্ষক, কর্মচারীসহ শিক্ষার্থীরা।
হামলাকারীদের শাস্তির দাবিতে পাঠদান ও পরীক্ষা বর্জন শিক্ষকদের
সোমবার  ফুলবাড়ী উপজেলার এলুয়াড়ি ইউনিয়নের খাজাপুর একরামিয়া ফাজিল মাদ্রাসার সম্মুখে ঘণ্টাব্যাপী মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়।

মানববন্ধন কর্মসূচি চলাকালে বক্তব্য রাখেন মাদ্রাসার সহকারী শিক্ষক মাসুম পারভেজ, সহকারী অধ্যাপক শাহানাজ পারভীন, সহকারী অধ্যাপক সাদরুল আমিন, শিক্ষার্থী ইতি মনি, নাদিয়া আক্তার, মিফতাহুল জান্নাতসহ আরো অনেকে প্রমুখ।

এদিকে মানবন্ধন কর্মসূচি শেষে অবস্থান পাঠদান ও অর্ধবার্ষিক পরীক্ষা বর্জন করে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেন শিক্ষকগণ। এতে পরীক্ষা দিতে আসা ষষ্ঠ থেকে ১০ম শ্রেণির শিক্ষার্থীরা বিপাকে পড়েন।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, দামোদরপুর গ্রামের ইদ্রিস আলীর ছেলে রমজান আলী ও মৃত ওসিয়ার রহমানের ছেলে আল আমিনসহ এলাকার বখাটেরা গত রবিবার (৪ জুন) মাদ্রাসার শিক্ষক কমন কক্ষ থেকে সহকারী অধ্যাপক রশিদুল ইসলামকে টেনে বের করে মাঠে নিয়ে বেদম পারপিট করে। তাদেরকে অন্য শিক্ষকরা বাঁধা দিতে গেলে তাদেরও ওপর হামলা চালায় তারা। আমরা রমজান আলী ও আল আমিনসহ জড়িতদের কঠোর শাস্তির দাবি জানাচ্ছি।

শেয়ার করুন

Sorry, no post hare.